Maintance

ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন পাস চার সপ্তাহে

প্রকাশঃ ৩:৩৫ অপরাহ্ন, এপ্রিল ১৫, ২০১৮ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৯:৩৪ অপরাহ্ন, এপ্রিল ১৫, ২০১৮

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন দ্রুত পাস করে তা কার্যকর চেয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।

রোববার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁওয়ে দুই দিনব্যাপী বিপিও সম্মেলনের উদ্বোধনীতে প্রধান অতিথির বক্তব্যকালে প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের কাছে জানতে চান এটি এক সপ্তাহের মধ্যে পাস হবে কিনা?

উত্তরে মোস্তাফা জব্বার ৪ সপ্তাহের সময় চান।

জয় তার বক্তব্যে বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ধর্ম নিরপেক্ষতায় বিশ্বাস করে, যেকোনো মূল্যে তা রক্ষা করতে বদ্ধপরিকর। বিশেষ করে পূর্বের সরকার যেভাবে দেশকে জঙ্গিবাদ ও চরমপন্থার দিকে ঠেলে দিয়েছিল, তা যাতে আর কোনো দিনই না হতে পারে। দেশে চরমপন্থীদের মত প্রকাশের কোনো অধিকার নেই, দেশে তাদের কোনো স্থান নেই। সে চিন্তা থেকেই ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টের খসড়াটি তৈরি করা হয়েছে।

BPO-techshohor

প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা বলেন, আমরা বাকস্বাধীনতা কেড়ে নিতে চাই না। কিন্তু অনলাইনে কারও বক্তব্যের কারণে যদি কেউ হামলার স্বীকার হন, যদি ক্ষতির মুখে পড়েন, বিশেষ করে যদি সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে তা করা হয়ে থাকে, তাইলে সে বক্তব্যকে সবার মধ্যে ছড়িয়ে দেয়ার উপায় বন্ধ করে দেয়া হবে। সেটি বাকস্বাধীনতা নয়, সেটি বিদ্বেষমূলক, উসকানিমূলক এবং তার জন্য অবশ্যই বক্তাকে দায় নিতে হবে, উপযুক্ত শাস্তি পেতে হবে।

Symphony 2018

আর এটি লক্ষ্য করেই ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে। বিশেষ করে ডিজিটাল মিডিয়াতে সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়ানোর ওপরে। ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট বাকস্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ নয়, বরং সংখ্যালঘুদের ওপর ডিজিটাল হামলা থেকে নিরাপত্তার দেয়াল মাত্র।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এবং টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদ।

উপস্থিত ছিলেন তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ, তথ্যপ্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) এ কে এম খায়রুল আলম এবং বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব কলসেন্টার অ্যান্ড আউটসোসিংয়ের (বাক্য) সভাপতি ওয়াহিদ শরীফ।

ইতোমধ্যে ৯ মার্চ ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল-২০১৮’ সংসদে উত্থাপন করেছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

পরে বিলটি ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়েছে বিস্তারিত পরীক্ষা করে সংসদে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য।

এস এম তাহমিদ

*

*

Related posts/