এমএনপি চালুতে সময় আর বাড়বে না : বিটিআরসি

প্রকাশঃ মার্চ ১৪, ২০১৮, ০৫:৪৫ - আপডেটঃ মার্চ ১৫, ২০১৮, ১১:৩৬

Symphony 2018

টেকশহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : নম্বর অপরিবর্তিত রেখে অপারেটর বদলের সুযোগ বা এমএনপি সেবার জন্য গ্রাহকদের অপেক্ষা বাড়বে না বলে জানিয়েছেন নিয়ন্ত্রণ কমিশেনের চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ।

বুধবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, মোবাইল ফোন অপারেটররা দুই মাস সময় বাড়ানোর দাবি জানালেও তারা আর কোনো অবস্থাতেই সময় বৃদ্ধি করবেন না।

মে মাসের মধ্যেই গ্রাহকদের কাছে মোবাইল নম্বর পোর্টেবিলিটি চালুর প্রতিশ্রুতি আমরা দিয়েছিলাম, সেটার কোনো নড়চড় হবে না বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের চেয়ারম্যান।

সম্প্রতি মোবাইল অপারেটররা বিটিআরসিকে একটি চিঠি লিখে সেবাটি চালু করার জন্যে আরো দুই মাস সময় নেওয়ার আবেদন করে। তার প্রেক্ষিতেই বিটিআরসির চেয়ারম্যান এমন মন্তব্য করেছেন।

mnp-techshohor1

নিজ কার্যালয়ে আলাপকালে তিনি আরো বলেন, মোবাইল অপারেটররা সেবা চালু করতে যথেষ্ট সময় পেয়েছে। এখন প্রস্তুতির জন্যে আরো সময় দরকার-এমন অজুহাত দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই।

নভেম্বরে যখন বিটিআরসি ইনফোজিলিয়ন বিডি-টেলিটেক নামের একটি কোম্পানিকে লাইসেন্স দেয় তখন শর্ত ছিল ১৮০ দিনের মধ্যে সেবা চালু করতে হবে। কোম্পানিটিও মার্চের মধ্যেই সেবা চালু করবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল।

সেবা চালু হওয়ার পর গ্রাহকরা ৩০ টাকা ফি দিয়ে নম্বর ঠিক রেখে অপারেটর পরিবর্তনের আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করার ৭২ ঘণ্টার মধ্যে তার অপারেটর বদলে যাবে।

তবে পুনরায় অপারেটর পরিবর্তন করতে হলে তাকে ৯০ দিন অপেক্ষা করতে হবে।

বিটিআরসির চেয়ারম্যান বলেন, এমএনপি সেবা চালু হলে তা অপারেটরদেরকে আরো প্রতিযোগিতার মুখে ফেলবে। আর এর ফলে লাভবান হবে গ্রাহক। ফলে গ্রাহকের গুণগত সেবা পাওয়ার পথ আরো প্রশস্ত হবে।

অন্তত এক দশক ধরে বাংলাদেশে এমএনপি চালুর আলোচনা থাকলেও এতদিন পর্যন্ত তা হয়নি। এখন এটি চালুর পর্যায়ে আসায় সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছিলেন অনেকে। বিশেষ করে যারা অপারেটরগুলোর সেবা নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে বিরক্ত। কিন্তু সেখানেও এখন মোবাইল অপারেটররাই বাধা হিসেবে দেখা যাচ্ছে।

এর আগে ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে একবার নিলাম আহবান করেও শেষ পর্যন্ত নিরাপত্তার কথা বলে তা বাতিল করা হয়।

তার আগে ২০০৮ সালে প্রথম উদ্যোগ নেওয়া হয়। ২০০৯ এবং ২০১০ সালে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটিতেও বিষয়টি কয়েকবার আলোচনার পর এটি বাস্তবায়নের সুপারিশও করে কমিটি।

২০১৪ সালে এসে বিটিআরসি এ সংক্রান্ত একটি নীতিমালা করে। তখনও মোবাইল ফোন অপারেটরদের সংগঠন অ্যামটব নানা প্রতিবন্ধকতার কথা বলেছিল।

ইমরান হোসেন মিলন

*

*

সর্বাধিক পঠিত