ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের ভ্যাট কমল ১০ শতাংশ

আল আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের তরঙ্গ (স্পেকট্রাম) মূল্যসহ বিভিন্ন ফির ওপর মূল্য সংযোজন কর (ভ্যাট) ১০ শতাংশ কমানো হয়েছে। এখন থেকে কোম্পানিগুলো এ ধরনের সেবার ক্ষেত্রে ৫ শতাংশ ভ্যাট দেবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ১ এপ্রিল ইন্টারনেট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর ভ্যাট ১৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৫ শতাংশে নামিয়ে আনার নির্দেশনা জারি করে। এনবিআর সূত্রে জানা গেছে, মোবাইল অপারেটরদের থ্রিজি লাইসেন্স ফির ওপরও ভ্যাট কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়েছে।

এ সিদ্ধান্তে অবশ্য গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেটের ওপর যে ১৫ শতাংশ ভ্যাট রয়েছে তা কমবে না।

Fibre-Optic-Cable_Tech Shohor

দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এ ভ্যাট কমানোর আশ্বাস দিয়ে আসছিলেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। রোববার তিনি তার ফেইসবুক স্টাটাসে জানান, ইন্টারনেটের ওপর ১০ শতাংশ ভ্যাট কমানো হলো।

দেশে বর্তমানে কয়েক ধরনের প্রতিষ্ঠান ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সার্ভিস দেয়। ওয়াইম্যাক্স অপারেটর, ব্রড ব্র্যান্ড ওয়ারলেস এক্সসেস (বিডব্লিওএ) ও ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার (আইপিএস) ক্যাটাগরির প্রতিষ্ঠানগুলো লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়ন ফি, স্পেকট্রাম (তরঙ্গ) ফি এবং বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) সঙ্গে আয়-ভাগাভাগির ওপর এতদিন ১৫ শতাংশ ভ্যাট দিয়ে আসছে।

এনবিআরের এ আদেশের ফলে এসব ক্ষেত্রে এখন থেকে ৫ শতাংশ ভ্যাট দিতে হবে।

এনিবিআরের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, বিসিএস, বেসিসসহ বিভিন্ন আইটি সংগঠন ও গ্রাহকদের দীর্ঘদিনের দাবির প্রেক্ষিতে ইন্টারনেট সেবা গ্রাহকদের নাগালের আনতে ভ্যাটের হার কমানো হয়। জনস্বার্থের গুরুত্ব বিবেচনা করে ও এ বিষয়ে অনুসন্ধান করে ইন্টারনেট সংযোগদাতা সংস্থার ওপর থেকে ভ্যাট কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তবে সার্ভিস প্রোভাইডাররা বলছেন, এ ভ্যাট কমানোর সুবিধা গ্রাহকরা খুব একটা পাবেন না। প্রোভাইডারদের লাইসেন্স নবায়নের বার্ষিক ফি এক লাখ টাকার ওপর ১৫ হাজার টাকার ভ্যাট কমে ৫ হাজার টাকা হয়েছে। যদি নিয়মিত সেবার মূল্যের ওপর বিদ্যমান ভ্যাট কমানো হতো তাহলে গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেট ব্যবহারের ব্যয় কমত।

Related posts

*

*

Top