Maintance

ফোরজির লাইসেন্স ২০ ফেব্রুয়ারি

প্রকাশঃ ১২:২৮ পূর্বাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ১২:০৩ অপরাহ্ন, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : অনেক প্রতীক্ষার ফোরজি চালুর আনুষ্ঠানিকতা প্রায় শেষ পর্যায়ে। দীর্ঘ দেনদরবার ও আলোচনার পর সব প্র্রক্রিয়া শেষে ২০ ফেব্রুয়ারি চার অপারেটরকে এ লাইসেন্স দেওয়া হবে।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশন বিটিআরসি ওই দিন গ্রামীনফোন, রবি, বাংলালিংক ও টেলিটককে বহুল প্রতিক্ষীত চতুর্থ প্রজন্মের মোবাইল প্রযুক্তি সেবার লাইসেন্স হস্তান্তর করবে।

কমিশনের চেয়ারম্যান ড. শাহজাহান মাহমুদ ওই দিন এক অনুষ্ঠানে লাইসেন্স দেওয়া হবে বলে অপারেটরগুলোকে জানিয়েছেন।

এ চার অপারেটর লাইসেন্স পাওয়ার সব যোগ্যতা পূরণ করেছে এবং লাইসেন্স ফি ১০ কোটি টাকা দেওয়া সাপেক্ষে চতুর্থ প্রজন্মের লাইসেন্স পাওয়ার জন্য বিবেচিত হয়েছে বলে সোমবার নিজ কার্যালয়ে অপারেটরগুলোর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়েছেন ড. শাহজাহান।

সোমবার বিটিআরসিতে ফোরজির জন্য স্পেকট্রামের নিলামের মহড়াও হয়। চূড়ান্ত নিলাম আজ হবে। দুই অপার্টের বাংলালিংক ও গ্রামীণফোন এতে অংশ নেবে।

নিলামের ওই মহড়াতেই লাইসেন্স দেওয়া তারিখ জানান বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান।

পরে রবি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাহাতাব উদ্দিন আহমেদ কমিশনের চেয়ারম্যানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে গেলে তাকেও ২০ ফেব্রুয়ারি ফোরজি লাইসেন্স দেওয়ার তারিখ জানানো হয়।

তবে রবি অবশ্য আগেই ফোরজি’র লাইসেন্স চেয়েছিল। অপর দিকে বাংলালিংক স্পেকট্রাম নিলাম সম্পন্ন না করে আগে ভাগে লাইসেন্স দেওয়ার ঘোর বিরোধিতা করে। আর গ্রামীণফোন বা টেলিটক এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক বা প্রকাশে কোনো বক্তব্য জানায়নি।

4g-techshohor

বিটিআরসি’র চেয়ারম্যান জানান, ফি দেওয়া সাপেক্ষে একটি বড় অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অপারেটরগুলোকে লাইসেন্স দেওয়া হবে। লাইসেন্স পাওয়ার পরপরই অপারেটরগুলো গ্রাহকদের ফোরজি সেবা দিতে শুরু করবে বলেও জানান তিনি।

‘আমরা জানি, অপারেটররা প্রযুক্তিগত দিক দিয়ে একেবারেই তৈরি হয়ে আছে। যে কোনো সময়েই তারা সেবা চালু করতে পারবে বলেও জানিয়েছে- বলছিলেন ড. শাহজাহান।

ফোরজি নীতিমালা অনুসারে ১৮ মাসের মধ্যে সবগুলো জেলা শহরে নতুন প্রজন্মের এ সেবা চালু করতে হবে। আর ৩৬ মাসের মধ্যে উপজেলা পর্যায়ে এই সেবা নিয়ে যেতে হবে।

তবে শুরুর দিকে শুধু বড় শহরেই এই সেবা পাওয়া যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

ফোরজি চালু হলে মানুষের প্রযুক্তি নির্ভর কাজের গতি অনেক বাড়বে। ফলে ডিজিটাইজেশন অত্যন্ত দ্রুতগতিতেই এগুবে বলেও মনে করেন তারা।

এদিকে মঙ্গলবার বিটিআরসি যে নিলামের আয়োজন করেছে সেখানে বাংলালিংক ২১০০ ও ১৮০০ ব্যান্ডে এবং গ্রামীণফোন শুধু ১৮০০ ব্যান্ডে স্পেকট্রাম কেনার কথা জানিয়েছে।

৯০০ ব্যান্ডের স্পেকট্রাম নিলামে তোলা হলেও বিটিআরসি কোনো আবেদন পায়নি।

*

*

Related posts/