বাজেটে ৭০০ কোটি টাকা বরাদ্দসহ ৭ দাবি বিসিএসের

আল আমীন দেওয়ান, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : সাত বছরের জন্য কর অবকাশ (ট্যাক্স হলিডে) সুবিধাসহ আগামী অর্থবছরের বাজেটে ৭০০ কোটি টাকার বরাদ্দ চেয়েছে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতি(বিসিএস)।

একই সঙ্গে তথ্যপ্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট পণ্যের শুল্কায়নে এইচএস কোড শ্রেণীর পুণর্বিন্যাস অথবা কর হার সুবিন্যস্ত করার দাবিও জানিয়েছে সংগঠনের নেতারা।

মঙ্গলবার বিসিএস মিলনায়তনে ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরের বাজেটে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে বিসিএসের প্রস্তাব তুলে ধরতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

Bcs_budget_techshohor-1

সংবাদ সম্মেলনে বাজেট প্রস্তাব তুলে ধরেন বিসিএস সভাপতি এএইচএম মাহফুজুল আরিফ। এ সময় কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যান্য সদস্য ও বিসিএসের আট শাখা কমিটির সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সর্ববৃহৎ এ সংগঠনের সাতটি দাবির অন্যগুলো হলো, আউটসোর্সিং ও ই-সেবায় ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট প্রত্যাহার, পাঁচ বছরের জন্য প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট ব্যবসায় বাড়ি ভাড়ার ওপর ৯ শতাংশ মূসক প্রত্যাহার, ই-বাণিজ্যের সকল লেনদেনে খুচরা বিক্রয় পর্যায়ে মূল্য সংযোজন কর প্রত্যাহার, আমদানি পর্যায়ে এটিভির হার অন্তত ১ শতাংশ কমানো এবং সরবরাহ পর্যায়ে কোনো ভ্যাট আরোপ না করা।

বিসিএস সভাপতি বলেন, আনুপাতিক হারে দেশের রপ্তানি আয়ের সবচেয়ে বড় খাত পোশাক শিল্প থেকে তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বিকাশমানতা এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির সম্ভাবনা বেশি। অথচ ইন্টারনেট ব্যবহারের ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাটসহ আইটি পণ্য আমদানি ও সরবরাহ ব্যবস্থাপনা এবং আইটি সেবা খাত বিকাশের পথে বেশ কিছু প্রতিবন্ধকতা রয়েছে।

লিখিত বক্তব্যে আরিফ স্কুল পর্যায়ে কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন ও শিক্ষা কার্যক্রমের সঙ্গে প্রযুক্তিকে আরও যুক্ত করার জন্য বাজেটে ৭০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়ার আহবান জানান।

প্রযুক্তি পণ্য আমদানির ক্ষেত্রে বিদ্যমান এইচএস কোডের কারণে বাড়তি শুল্কের চাপ তৈরি হচ্ছে। আগামী এটি সহজ করার দাবিও জানান তিনি।

একই সঙ্গে আমদানি পর্যায়ে অগ্রিম কর, সরবরাহ পর্যায়ে উৎসে কর এবং প্রযুক্তি সেবার ওপর দ্বৈত হারে করারোপ তুলে নিতেও বাজেটে ঘোষণা চান বিসিএস সভাপতি।

Related posts

*

*

Top