গিনিস বুকে জিটিএ ফাইভ!

টেক শহর ডেস্ক : রেকর্ড ভাঙতেই যেন বাজারে এসেছে জিটিএ ফাইভ। রকস্টার গেইমসের তুমুল জনপ্রিয় গ্র্যান্ড থেফট অটো সিরিজের সর্বশেষ এ গেইমটি বাজারে সাড়া ফেলবে বলে ধারণা করা হয়েছিল, কিন্তু একের পর এক রেকর্ড করে যে গিনিস বুকেও স্থান করে নেবে, তা বোধহয় স্বয়ং রকস্টারও ভাবতে পারেনি!

জিটিএ ফাইভের সাফল্য বিচারের জন্য মাত্র একটি তথ্যই যথেষ্ঠ- এটি এযাবৎকালের সবচেয়ে বেশি আয় করা বিনোদন পণ্য। জনপ্রিয় ও ব্যবসাসফল প্রচুর চলচ্চিত্র ও টিভি শো’কে পিছনে ফেলে এটি সবচেয়ে কম সময়ে র্শীষস্থান দখল করে নিয়েছে।

মুক্তি পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে জিটিএ ফাইভ বিক্রি হয় প্রায় সোয়া কোটি কপি, আয় করে ৮০ কোটি ডলারেরও বেশি। মাত্র তিনদিনের মাথায় আয় ছাড়িয়ে যায় একশ কোটি ডলার। বিনোদন পণ্য তো দূরের কথা, কোনো ইলেক্ট্রনিক্স পণ্যও এতো কম সময়ে বিলিয়ন ডলারের মুখ দেখেনি এর আগে।

জিটিএ ফাইভের ব্যাপারে বলতে গিয়ে গিনিস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের প্রধান সম্পাদক ক্রেইগ গ্লেন্ডে বলেন, জিটিএ ফাইভ প্রমাণ করেছে যে গেইম এখন আর নিছক শখ নয়। তারা হলিউডকে অতিক্রম করেছে।

গিনিস রেকর্ডস জিটিএ ফাইভের সাফল্যকে ‘গ্রাউন্ডব্রেকিং’ উল্লেখ করে জানিয়েছে, মুক্তির পর থেকে সব মিলিয়ে সাতটি রেকর্ড ভেঙেছে এই গেইম। অন্যান্য সব সাফল্যের সঙ্গে গেইম সর্ম্পকিত সব রেকর্ড ভেঙে ফেলাতো আছেই।

grand-theft-auto-gta-5_Tech Shohor

অ্যাকশন-অ্যাডভেঞ্চারভিত্তিক এই সিরিজের আগের পর্ব জিটিএ ফোর মুক্তি পেয়েছিল ২০০৮ সালে। এবারের পর্বে গেইমের আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত নতুন করে সাজানো হয়েছে। এর আগেও ওপেন ওয়ার্ল্ড গেইমিংয়ের সবচেয়ে বড় উদাহরণ ছিল সিরিজিটি, জিটিএ ফাইভ এদিক দিয়ে পূর্বসূরেীদেরও অতিক্রম করেছে। এর সুবিশাল জগত এতোই বিস্তৃত ও নিখুত যে কউ বাস্তবের সঙ্গে গুলিয়ে ফেললেও অবাক হওয়ার কিছু নেই!

থার্ড পারসন গোত্রের এই গেইমের এবারের পটভূমি লস সান্তোস নামে একটি শহর, যা মূলত যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলসের অন্যরূপ। এবারই প্রথমবারের মত তিনজন নায়ককে নিয়ে খেলতে হবে। আপনার লক্ষ্য হবে তিন নায়ককে নিয়ে উত্থান-পতন পাড়ি দিয়ে অঢেল ধন-সম্পত্তির মালিক হওয়া।

গেইমটির মাল্টিপ্লেয়ার সংস্করণে একসঙ্গে ১৬ জন খেলতে পারবেন। অনেকেই একে এখন পর্যন্ত ‘মোস্ট পারফেক্ট গেইম এভার’ বলে অ্যাখ্যায়িত করেছেন।

– গেইমস্পট অবলম্বনে হাসান শাহরিয়ার হৃদয়

*

*

Top