আর্কহ্যাম অরিজিন্স : একঘেয়েমির ফাঁদ

টেক শহর ডেস্ক : ব্যাটম্যানের আটকে রাখা সহজ নয়! যত কঠিন ফাঁদই পাতা হোক না কেন, বুদ্ধির জোরে আর বিচিত্র কোনো গ্যাজেটের সাহায্যে সে বেরিয়ে আসতে পারে। ব্যাটম্যান সিরিজের এর আগের দুটি গেইমে তাকে এমন রূপেই দেখেছি আমরা। কিন্তু সদ্য মুক্তি পাওয়া আর্কহ্যাম অরিজিন্সে যে ফাঁদে ব্যাটম্যান আটকা পড়েছে, তার নাম একঘেয়েমি।

২০০৯ সালের আর্কহ্যাম অ্যাসাইলাম ও ২০১১ সালের আর্কহ্যাম সিটি যারা খেলেছিলেন, তারা জানেন যে গেইম দুটি কি পরিমাণ সাড়া ফেলেছিল। স্টিল্‌থ ও অ্যাকশনের দারুণ সমন্বয়ে গেইম দুটি অনেকেরই সবচেয়ে প্রিয় গেইমের তালিকায় স্থান পায়। তাই স্বাভাবিকভাবেই ২০১৩ সালের আর্কহ্যাম অরিজিন্স থেকে প্রত্যাশা ছিল আকাশচুম্বী।

আর্কহ্যাম অরিজিন্স পাবলিশ করেছে ওয়ার্নার ব্রাদার্স, ডেভেলপ করেছে ওয়ার্নার ব্রাদার্স মনট্রিল। তবে এর আগের পর্বগুলো তৈরি করেছিল রকস্টেডি স্টুডিও।

আগের পর্বগুলোর সঙ্গে অরিজিন্সের যদি তুলনা করা হয়, তাহলে সবার আগে চোখে পড়বে নতুন গেইমটির বিশাল জগত। কিন্তু চলা-ফেরার জন্য আগের মতো গ্র্যাপল কিংবা উড়ে বেড়ানোর উপরই নির্ভর করতে হবে। তাই ওপেন ওয়ার্ল্ডের পুরো স্বাদটুকু পাবেন না অনেকে। এ ছাড়া অনেক সময় বিরাট দূরত্ব পার করে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যেতে বিরক্তি লাগতে পারে।

batman arkham origins, techshohor

গেইমের কাহিনী শুরু আর্কহ্যাম অ্যাসাইলামের পাঁচ বছর আগে থেকে। ব্যাটম্যান তখনও এতোটা অভিজ্ঞ বা দক্ষ হয়নি। অপরাধ সাম্রাজ্যের রাজা ব্ল্যাক মাস্ক ব্যাটম্যানকে ধরিয়ে দেওয়ার জন্য পুরস্কার ঘোষণা করেছে, যে কারণে গোথাম সিটিতে এসে হাজির হয়ছে বাঘা বাঘা অপরাধীরা।

ব্যাটম্যানের প্রতিটি গেইমেই সাইড-মিশনগুলো গুরুত্বপূর্ণ ও বেশ উপভোগ করার মতো। আর্কহ্যাম অরিজিন্সেও তা-ই, কিন্তু এক্ষেত্রে নতুনত্ব তেমন আসেনি। আর সাইড-মিশনের মাধ্যমে বেশ কিছু নতুন চরিত্রকে নিয়ে আসা হয়েছে, যাদের হারাতে গেলে বেশ মাথা খাটাতে হবে।

গেইমটির কম্ব্যাট আগেরগুলোর মতোই চ্যালেঞ্জিং। মারামারির অ্যানিমেশন, ফিনিশিংসহ নতুন নতুন আপগ্রেড কম্ব্যাটের মজাকে আরও বাড়িয়ে দেবে। তবে নতুন কয়েক রকম শত্রুর বাইরে কম্ব্যাট সিস্টেমে তেমন পরিবর্তন আনা হয়নি। যারা আগের গেইম দুটি খেলেছেন, তাদের কাছে মারামারিটা একপর্যায়ে নেহাত ‘রুটিনওয়ার্ক’ মনে হতে পারে।

অন্যান্য গেইমের মতো ব্যাটম্যান মানেই কেবল গেইমপ্লে আর গ্রাফিক্স-অ্যানিমেশন নয়, কাহিনীও এখানে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সেদিক থেকে অন্তত হতাশ করবে না আর্কহ্যাম অরিজিন্স। ব্যাটম্যানের ক্লাসিক ভিলেনদের প্রত্যেককেই আলাদা ব্যক্তিত্ব দিয়ে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। তাই আপনার হবে কেবল রাক্ষসরূপী ভিলেন নয়, সত্যিই যেন অশুভ কোনো শক্তির বিরুদ্ধে লড়াই করছে ডার্ক নাইট।

গেইমবোদ্ধারা বলছেন, আর্কহ্যাম সিরিজ শুরু করেছিলেন যে ডেভেলপার, অর্থাৎ রকস্টেডি স্টুডিওজকে বাদ দিয়ে ওয়ার্নার ব্রাদার্স নিজেরাই গেইমটি তৈরি করায় তা প্রত্যাশিত চমক দেখাতে পারেনি।

এক নজরে ভালো

–           স্মুথ গেইমপ্লে, উপভোগ্য কম্ব্যাট, স্টিল্‌থ উন্নত

–           চমৎকার কাহিনী ও চরিত্রায়ন

 এক নজরে খারাপ

–           নতুন কোনো সংযোজন নেই

–           আগের পর্ব যারা খেলেছেন তাদের কাছে একঘেয়ে লাগতে পারে

রেটিং

–           গেইমস্পট  ৬/১০

–           আইজিএন  ৭.৮/১০

–           গেইমইনফর্মার ৮.৫/১০

-গেইমভিত্তিক ওয়েবসাইট অবলম্বনে শাহরিয়ার হৃদয়, টেক শহর ডেস্ক

Related posts

*

*

Top