Maintance

বিনিয়োগে বাংলাদেশকে গুরুত্ব দিচ্ছে ডেলইএমসি

প্রকাশঃ ৬:২৮ অপরাহ্ন, নভেম্বর ২৫, ২০১৭ - সর্বশেষ সম্পাদনাঃ ৬:৩৪ অপরাহ্ন, নভেম্বর ২৫, ২০১৭

বিশ্ববিখ্যাত সার্ভার, স্টোরেজ, ক্লাউড সেবা ও আইটি ট্রান্সফরমেশন কোম্পানি ডেলইএমসি বাংলাদেশে সম্প্রতি ল্যাব ও এক্সপেরিয়েন্স সেন্টার চালু করেছে। সেন্টারটির উদ্বোধন করতে ঢাকায় এসেছিলেন কোম্পানিটির এশিয়া ইমার্জিং মার্কেটস ও এপিজে নিউ বিজনেসের ভাইস প্রেসিডেন্ট চুই চি উয়েই।

এ সময় বাংলাদেশে ডেলইএমসির ব্যবসায়িক পরিকল্পনা, বাজার-বিনিয়োগ ও বৈশ্বিক কার্যক্রম নিয়ে টেকশহরডটকমের সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। সাক্ষাতকার নিয়েছেন এস এম তাহমিদ।

১৯৯৭ সাল থেকে ডেলের সঙ্গে কাজ করছেন চুই চি উয়েই।  ২৫ বছরেরও বেশি অভিজ্ঞতার আলোকে তিনি বাংলাদেশে ডেলইএমসির শাখা পরিচালনা করছেন।

টেক শহর : বাজার হিসেবে বাংলাদেশকে কিভাবে দেখছে ডেল? এ দেশের জন্য প্রতিষ্ঠানটির ভবিষ্যত পরিকল্পনা কী?

চু চি উয়েই : বাংলাদেশ প্রযুক্তি এবং প্রযুক্তিপণ্যের জন্য এখন অন্যতম গুরত্বপূর্ণ একটি বাজার। শুরু থেকেই এ দেশে বিনিয়োগ করাকে অত্যন্ত গুরত্বের সঙ্গে দেখে আসছে ডেল। তারই প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে আমরা ডেলইএমসি সেবা এখানে চালু ও ডেলইএমসি এক্সপেরিয়েন্স জোন তৈরি করেছি। এদেশের সকল প্রকার সরকারি এ বেসরকারী সেবামূলক প্রতিষ্ঠান যাতে খুব সহজে ও সর্বোচ্চ নিরাপত্তার সঙ্গে তাদের সেবা ব্যবহারকারীদের কাছে অনলাইনে পৌঁছে দিতে পারে সেজন্য ডেল সবসময় চেষ্টা করে যাচ্ছে।

এখানে আসার পর থেকেই আমরা চেষ্টা করছি আমাদের সবগুলো ব্র্যান্ড এদেশে নিয়ে আসতে। ইতোমধ্যে ডেল, ডেলইএমসি, আরএসএ ও ভিএমওয়্যার কাজ শুরু করেছে। আমাদের সার্ভিস টিম যেকোনো সমস্যা সমাধানে ২৪ ঘণ্টা প্রস্তুত।

আমাদের ডিস্ট্রিবিউশন পার্টনাররা সার্ভার ও স্টোরেজের অর্ডার পাওয়ার ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে বাংলাদেশের যেকোনো স্থানে তা পৌঁছে চালু করে দেওয়ার জন্য তৈরি। ডেলইএমসি সেবার পাশাপাশি আমরা চাই ভিএমওয়্যারের পণ্য ও সেবাও আগামী এক বা দুই বছরের মধ্যে সবার জন্য সহজলভ্য করতে।

টেক শহর : ডেল ব্র্যান্ডটির সঙ্গে সবাই কম্পিউটার নির্মাতা হিসেবেই পরিচিত। ডেলইএমসি কি সেখানে নতুন কিছু যোগ করবে?

চু চি উয়েই : ডেল যখন কম্পিউটার বিক্রি শুরু করে তখন বাজারে অসংখ্য প্রতিযোগী ছিল। এখন প্রতিযোগীর সংখ্যা হাতেগোনা, ভবিষ্যতে তা আরও কমে আসবে। শুধুমাত্র কম্পিউটার তৈরি ও বিক্রি করে ডেল টিকে থাকতে পারবে না। ভবিষ্যতেও ডেল যাতে নিজের মার্কেট লিডার অবস্থান ধরে রাখতে পারে সেজন্যই আমরা এন্টারপ্রাইজ সেবায় হাত দিয়েছি।

ইএমসিকে কেনার মাধ্যমে আমরা প্রযুক্তি দুনিয়ার ১৫টি অংশের লিডারে পরিণত হয়েছি; যেখানে বেশিরভাগ কোম্পানি এক বা দুইটি অংশের লিডার হতেও হিমশিম খেয়ে যায়। ভবিষ্যতে প্রযুক্তি বিশ্ব যেদিকেই যাক না কেন, ডেল তার সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে পারবে। কেননা আমাদের মত সেবা প্রদাণকারী থেকে ক্রেতা পর্যন্ত তা পৌঁছে দেওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় সকল প্রযুক্তিতে পারদর্শী আর কোনো কোম্পানি নেই।

টেক শহর : সার্ভার, স্টোরেজ, ক্লাউড সেবাতে ডেল এই মুহূর্তে ঠিক কোন অবস্থানে রয়েছে?

চু চি উয়েই : আমরা বেশ গর্বের সঙ্গেই বলতে পারি, এশিয়া প্যাসিফিক ও বাংলাদেশ অঞ্চলে ডেলইএমসি সার্ভার, স্টোরেজ সলিউশন ও এজিউর ক্লাউড সেবার সবার ওপরে অবস্থান করছে। আমাদেরে ঠিক পরে যাদের অবস্থান, তারা আমাদের চাইতে অনেকগুন পিছিয়ে। এই শক্ত অবস্থান আরও দৃঢ় করার জন্যই আমরা দিন রাত কাজ করছি।

টেক শহর : ডেলইএমসি এক্সপেরিয়েন্স সেন্টারটি মূলত কী কাজের জন্য তৈরি ও কারা এর সুবিধা নিতে পারবেন?

চু চি উয়েই : ডেলইএমসি এক্সপেরিয়েন্স সেন্টারে থাকবে আমাদের সর্বাধুনিক সার্ভার, স্টোরেজ সলিউশন ও তা ব্যবহারের জন্য টার্মিনাল। যে ডেভেলপাররা তাদের সেবা ও পণ্য ক্লাউডে উন্নীত করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বা যে সকল অ্যাপ ডেভেলাপাররা সার্ভারের সঙ্গে তাদের অ্য়াপ কিভাবে সংযুক্ত হবে তা পরীক্ষা করে দেখতে চান, তাদের জন্য ডেলইএমসি এক্সপেরিয়েন্স সেন্টারের সকল হার্ডওয়্যার অ্যাপয়েন্টমেন্ট সাপেক্ষে উন্মুক্ত করে দেয়া হবে।

আপাতত আমাদের সেন্টারটি সকল ডেলইএমসি ক্রেতাদের জন্য উন্মুক্ত। শিক্ষার্থী ও অন্যান্য অ্যাপ ডেভেলাপারদের জন্যও বিনামূল্যে তা খুলে দেয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। এর মাধ্যমে ক্লাউডের জন্য ডেভেলপ করতে অ্যাপ নির্মাতারা আরও উদ্ব‌ুদ্ধ হবেন বলে প্রত্যাশা করি।

টেক শহর: বাংলাদেশে হার্ডওয়্যার তৈরি বা অ্যাসেম্বলিংয়ে অনেক কোম্পানি বিনিয়োগ করতে চাচ্ছে। ডেল কী রয়েছে তার মধ্যে?

চু চি উয়েই : ডেল সবসময়ই নিত্যনতুনভাবে তাদের পণ্যের উৎপাদন ও মান বাড়াতে সচেষ্ট। এই লক্ষ্য়ে পৌঁছাতে যা করণীয়, তা করার জন্য ডেল সবসময় প্রস্তুত। ঠিক এই মুহূর্তে বাংলাদেশে কোনো হার্ডওয়্যার প্ল্যান্ট করার পরিকল্পনা নেই ডেলের। তবে  ভবিষ্যত সম্ভাবনা আমরা উড়িয়ে দিচ্ছি না। যদি এ ব্যাপারে নতুন সিদ্ধান্ত হয় তাহলে তা দ্রুতই জানানো হবে।

টেক শহর : অন্যান্য এন্টারপ্রাইজ সলিউশন সেবার মধ্যে ডেল কেন আলাদা?

চু চি উয়েই : আমাদের সবগুলো সেবার আলাদা আলাদা ব্র্যান্ড ও স্ট্র্যাটেজিক বিজনেস ইউনিট থাকলেও ডেলের অ্য়াকাউন্টস বিভাগ একটিই। এর অর্থ, প্রতিটি ক্রেতার জন্য একটি ফাইল থাকার ফলে প্রতিটি বিভাগের কাছে অন্য বিভাগের সঙ্গে সেই ক্রেতার সম্পর্ক পরিষ্কার। যার ফলে যিনি আজ ১০০টি সার্ভার কিনছেন তিনি কাল একটি নোটবুক চাইলে তাকে আর দশটি ক্রেতার চেয়ে বেশি সুবিধা দেয়া হবে। যা সকল ক্ষেত্রেই হওয়া উচিত। একবার যাকে আমরা ডেলের কোনো অংশের ক্রেতা হিসেবে পাব, সেদিন থেকেই তিনি আমাদের সকল বিভাগের চোখে সমান সেবা পাবেন। এরকম সেবা দিতে খুব কম প্রতিষ্ঠানই প্রস্তুত।

টেক শহর : ডেলের অন্যান্য ব্র্যান্ড ও তাদের সেবা সম্পর্কে কিছু বলুন।

চু চি উয়েই : বেশিরভাগ ব্যবহারকারীর কাছেই ডেল ব্র্যান্ডটি সেরা ল্যাপটপ ও ডেস্কটপ নির্মাতা হিসেবে প্রসিদ্ধ। ব্যবসায়িক বা এন্টারপ্রাইজ পণ্য ও সেবার জন্য রয়েছে ডেলইএমসি। যার মাধ্যমে আমরা স্টোরেজ, সার্ভার ও ক্লাউড সেবা দিয়ে থাকি।

এছাড়াও অনলাইনে লেনদেন বা যেকোনো নিরাপদ যোগাযোগের জন্য রয়েছে আরএসএ। পুরাতন সেবা মাধ্যমকে অনলাইন ও ডিজিটাল করার জন্য রয়েছে পিভোটাল। অনলাইন নিরাপত্তা সেবার জন্য সিকিউরওয়ার্কস ও ভার্চুয়াল মেশিন ও সফটওয়্যার পরীক্ষার জন্য আছে ভিএমওয়্যার।

এই সাতটি ব্র্যান্ডের মধ্যে চারটি ইতোমধ্যে দেশে কাজ শুরু করেছে। আশা করছি একদিন সবগুলো সেবাই এদেশের মানুষের নাগালের মধ্যে নিয়ে আসতে পারব।

টেক শহর : ফোন বা ট্য়াবলেট বাজারে নতুন করে ডেলের কোনো কাজ করার সম্ভাবনা আছে কী?

চু চি উয়েই : স্মার্টফোন বাজারে ডেল একেবারে শুরুতে প্রবেশ করেছিল। কিন্তু ডেল ব্র্যান্ডের সঙ্গে ফোন ব্যবহারকারীদের পরিচিতি না থাকা, অগ্রগামী ডিজাইন হলেও সে সময় সবার কাছে গ্রহণযোগ্যতা না পাওয়ায় আমরা নিজেদের গুটিয়ে নিয়েছি। অদূর ভবিষ্যতে ডেল ফোন বা ট্যাবলেট বাজারে আসার তেমন কোনো সম্ভাবনা নেই।

*

*

Related posts/