স্বর্ণের ফোন আনতে কাজ করছে নকিয়া

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আনুষ্ঠানিকভাবে স্মার্টফোন বাজারে ফেরার আগেই নানা চমক জাগানিয়া স্মার্টফোন নিয়ে কাজ শুরু করেছে নকিয়া। ফিনল্যান্ড-ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটির সি১ নামের ফোন নিয়ে বেশ কিছু দিন ধরে প্রযুক্তিবিশ্বে হৈ চৈ চলছে। এই অবস্থায় নতুন এক গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। আর তা হল ‘নকিয়া ওরো’ নামের স্বর্ণের একটি ফোন আনতে কাজ করছে।

নকিয়া ওরো’তে ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ব্যবহার করা হবে। তবে পুরো ডিভাইসে স্বর্ণের প্রলেপ থাকবে না। শুধু ফোনটির সামনের অংশটি হবে স্বর্ণ খচিত, আর পেছনটা চামড়া দিয়ে মোড়ানো থাকবে।

Nokia Oro is covered with 18ct gold on the outside, tinged with Symbian regret inside 2

ফোনটির স্পেশিফিকেশন নিয়ে বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। জানা গেছে, সিমব্রিয়ান অপারেটিং সিস্টেম চালিত ডিভাইসটিতে ৩.৫ ইঞ্চির অ্যামোলেড ডিসপ্লে থাকবে। এতে ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা থাকবে, যা দিয়ে ৭২০ পিক্সেলের ভিডিও ধারণ করা যাবে।

চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে বিশ্ববাজারে আসবে নকিয়া ওরো। দাম পরবে ১১২৬ মার্কিন ডলার, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮৮ হাজার ২৪০ টাকা।

ইনগ্যাজেট অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন: 

ডিজিটাল পোডিয়াম আনল ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : আধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত ডিজিটাল পোডিয়াম বাজারে এনেছে ড্যাফোডিল কম্পিউটার্স লিমিটেড।

এই পোডিয়ামে রয়েছে একটি কোর আই থ্রি কম্পিউটার, ১৯ ইঞ্চির টাচ ইন্টার্যােক্টিভ মনিটর, ৭ ইঞ্চির টাচ কন্টোল প্যানেল, ওয়ারলেস হ্যান্ড, কলার মাইক্রোফোন, গোসনেক মাইক্রোফোন এবং এমপ্লিফায়ার।

Podium

এই ডিজিটাল পোডিয়াম দিয়ে কন্ট্রোল প্যানেল থেকে ক্লাসরুম, মিটিং রুম কিংবা কনফারেন্স রুমের সাউন্ড সিস্টেম, প্রজেক্টর, প্রজেক্টর স্ক্রিন, এডিশানাল ল্যাপটপ ভিডিও লাইজার, ইন্টার্যানক্টিভ হোয়াইট বোর্ড এবং স্মার্ট বোর্ড নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

ডিভাইসটি সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে এই ঠিকানায়

ইমরান হোসেন মিলন

পাতলা ল্যাপটপে সিইএস মাতালো এইচপি

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ১২ ইঞ্চির ম্যাকবুকের আদলে তৈরি হালকা গড়নের একটি বিজনেস নোটবুক এনেছে এইচপি। লাস ভেগাসে শুরু হওয়া প্রযুক্তিপণ্যের মহোৎসব ‘কনজ্যুমার ইলেকট্রনিকস শো (সিইএস) ২০১৬’ -তে এলিটবুক ফলিও জি১ নামের এই নোটবুক উন্মুক্ত করেছে মার্কিন প্রতিষ্ঠানটি।

এটি এইচপির তৈরি সবচেয়ে পাতলা নোটবুক যাতে ১২ ইঞ্চির ম্যাকবুককে টেক্কা দেয়ার মতো সকল উপাদানই রয়েছে।

এলিটবুক ফলিওই বর্তমান পৃথিবীর সবচেয়ে পাতলা এবং হালকা ওজনের বিজনেস-ক্লাস নোটবুক, এই দাবী এইচপি কর্তৃপক্ষের।

HP's EliteBook Folio G1 is its answer to the MacBook

এলিটবুক ফলিও জি১ নোটবুকের বডি অ্যালুমিনিয়াম দিয়ে তৈরি করা হয়েছে। এতে আছে অপশনাল ফোরকে-রেজ্যুলেশন ডিসপ্লে, যা ১২ ইঞ্চি ম্যাকবুকের ২৩০৪x১৪৪০ পিক্সেলের থেকেও বেশি। এছাড়াও এতে আছে ইউএসবি পোর্ট সি ও ইন্টেলের কোর এম প্রসেসর।

ডিভাইসটিকে ১৮০ ডিগ্রি পর্যন্ত খোলা যায়। এতে এর স্ক্রিন কিবোর্ডের পুরোপুরি সমতলে এনে কাজ করা যাবে। ডিভাইসটিকে ‘বিজনেস কম্পিউটার’ বলেও দাবী করছে এইচপি।

চলতি বছরের মার্চে বাজারে আসবে এই পণ্য। এটি ৯৯৯ মার্কিন ডলারে পাওয়া যাবে, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৭৮ হাজার ২৮৮ টাকা।

জেডডিনেট ডটকম ও ম্যাশেবল অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন: 

রাত পোহালেই স্মার্টফোন ও ট্যাব মেলা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : রাত পোহালেই রাজধানীতে শুরু হচ্ছে স্মার্টফোন ও ট্যাবের মেলা। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের নতুন মডেলের স্মার্টফোন, ট্যাব আর সর্বশেষ প্রযুক্তির মোবাইল অ্যাক্সোসরিজ নিয়ে আয়োজক প্রতিষ্ঠান এক্সপো মেকারের এটা পঞ্চম প্রদর্শনী।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি) তিন দিনব্যাপী ‘গ্রামীণফোন স্মার্টফোন ও ট্যাব মেলা’ বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হয়ে শনিবার পর্যন্ত চলবে।

বিকেল ৩টায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক প্রধান অতিথি হিসেবে মেলা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন ঘোষণা করবেন। তবে মেলা শুরু হবে সকাল ১০টায়।

Grameenphone Smartphone & Tab Expo 2016

মেলায় বিশ্বখ্যাত ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট পাওয়া যাবে। স্যামসাং, সিম্ফনি, হুয়াওয়ে, এলিট, হেলিও, স্টাইলাস, গোল্ডবার্গ, আসুস, লেনোভো, মাইসেল, টুইনমস, প্রেস্টিজিও, জিওমি, গ্যাজেট গ্যাং সেভেনসহ বিভিন্ন ব্র্যান্ড এতে অংশগ্রহণ করছে।

এবারের মেলার টাইটেল স্পন্সর হিসেবে রয়েছে দেশের শীর্ষ মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন এবং কো-স্পন্সর হিসেবে রয়েছে এলিট, হুয়াওয়ে, স্যামসাং ও সিম্ফনি।

মেলার সমন্বয়ক নাহিদ হাসনাইন সিদ্দিকী জানান, প্রদর্শনী উপলক্ষে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বিশেষ ছাড় ও উপহার দেবে। দর্শকরা প্রযুক্তির আধুনিক সব স্মার্ট ডিভাইস যাচাই বাছাই করে দেখতে ও কিনতে পারবেন। থাকছে অন্যান্য আয়োজনও।

প্রতিবারের মতো এবারও মেলা উপলক্ষে গ্রামীণফোন স্মার্টফোন ও ট্যাব এক্সপোর অফিসিয়াল ফেইসবুক পেইজে ‘এসটিই কুইজ কনটেস্ট ২০১৬’ নামক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। এতে বিজয়ীরা স্যামসাং, আসুস জেনফোন ২, এলিট মোবাইল ও হুয়াওয়ের পক্ষ থেকে স্মার্টফোন জিতে নিতে পারবেন।

প্রদর্শনীর সব আপডেট এই ফেইসবুক পেইজে এবং দেশের আইসিটি ও টেলিকম বিষয়ক শীর্ষস্থানীয় নিউজ পোর্টাল টেকশহরডটকমে পাওয়া যাবে।

মেলার সহযোগী হিসেবে আছে এডুমেকার, এলিট ফোর্স, পিপলস রেডিও এবং টেকশহর ডটকম। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এই মেলা চলবে।

মেলার টিকিটের মূল্য ২০ টাকা। তবে পরিচয়পত্র প্রদর্শনসাপেক্ষে স্কুল শিক্ষার্থী এবং প্রতিবন্ধীদের টিকিট লাগবে না। এছাড়াও টেকশহর ডটকমের অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডাউনলোড করে প্রবেশপথে প্রদর্শন করেও বিনা টিকিটে মেলায় প্রবেশ করা যাবে। এ বিষয়ে টিকিট বুথে বিস্তারিত নির্দেশনা পাওয়া যাবে।

টিকিটের অর্থ ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত দৈনিক কালের কণ্ঠের সাংবাদিক লতিফুল হকের চিকিৎসা খরচ, তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠন বিআইজেএফের উদ্যোগে দুস্থদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ ও জনকল্যানমূলক কাজে ব্যয় করা হবে।

ইমরান হোসেন মিলন

স্মার্টফোন ও ট্যাব মেলায় ৬ মডেলের জেনফোন

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : দেশের বাজারে তাইওয়ানভিত্তিক প্রতিষ্ঠান আসুসের জেনফোন আনতে যাচ্ছে প্রযুক্তিপণ্য পরিবেশক গ্লোবাল ব্র্যান্ড প্রাইভেট লিমিটেড। বৃহস্পতিবার থেকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক কনফারেন্স সেন্টারে শুরু হওয়া স্মার্টফোন ও ট্যাব মেলায় আনুষ্ঠানিকভাবে ফোনগুলো প্রদর্শন করা হবে।

শুরুতে দেশের বাজারে ৬টি মডেলে আসুসের জেনফোন পাওয়া যাবে। এর মধ্যে আছে, জেনফোন ২, জেনফোন ২ ডিলাক্স, জেনফোন লেজার এর ৩টি মডেল এবং জেনফোন সেলফি।

আসুসের জেনফোনগুলোর মেমোরি ৪ ‍জিবির। এতে আছে ইন্টেল আর কোয়ালকমের ৬৪ বিটের প্রসেসর।

ASUS ZenFone in smartphone & tab expo

ফোনগুলোতে পিক্সেল-মাস্টার টেকনোলজির ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে। ফলে এতে কোনো ফ্ল্যাশ ছাড়াই ঝকঝকে ছবি তোলা যাবে।

জেনফোনের আরেকটি দারুণ ফিচার জেন-ইউআই। এর মাধ্যমে ব্যবহারকারী খুব সহজেই ফোনের লঞ্চার, থিম কিংবা আইকন পছন্দমত পরিবর্তন করতে পারবেন। ফোনগুলোতে জেন মোশন, স্ন্যাপ ভিউ, ট্রেন্ড মাইক্রো সিকিউরিটিসহ আরও নানা ফিচার রয়েছে।

এ ব্যাপারে আসুস মোবাইল বাংলাদেশের প্রডাক্ট ম্যানেজার হান্টার হিসে বলেন, বাংলাদেশ আর আসুস উভয়ের জন্যই এটি নিঃসন্দেহে একটি আনন্দের মুহূর্ত। গ্লোবাল ব্র্যান্ডের সাথে জেনফোনের সূচনার সাথে সাথে ক্রেতাদের জন্য সর্বাধুনিক সার্ভিস সেন্টার চালু করতে পেরে আনন্দিত।

জানুয়ারির শেষ সপ্তাহ থেকেই বাজারে মিলবে আসুসের জেনফোন। জেনফোন সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যাবে আসুসের এই ওয়েবসাইট এবং এই ফেইসবুক পেইজ থেকে।

আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন: 

শিশুদের অ্যামাজন ফায়ার : ভালো ডিসপ্লেতে বাজে ক্যামেরা

আদনান নিলয়, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : প্রযুক্তিপণ্য ব্যবহারের দৌড়ে আজকাল পিছিয়ে নেই ছোটরাও। বড়দের পাশাপাশি এখন বাচ্চাদের হাতেও শোভা পায় হরেক রকমের স্মার্টফোন। খুব শিগগিরই কার্টুন নেটওয়ার্কের বদলে ট্যাবলেটই যে ছোটদের মূল বিনোদনদাতা হয়ে উঠবে, তা এখনই স্পষ্ট।

আর অদূর ভবিষ্যতকে আরেকটু তাড়াতাড়ি কাছে নিয়ে আসতে এগিয়ে এলো অ্যামাজন। প্রতিষ্ঠানটি একান্ত ছোটদের জন্য বাজারে নিয়ে আসল কম দামী এক ট্যাবলেট, অ্যামাজন ফায়ার : কিডস এডিশন।

ডিজাইন
ট্যাবলেটটির ডিজাইন ছোটদের আকর্ষণ করতে বাধ্য। এর খেলনা ধরনের ঢেউ খেলানো বডি মূহুর্তেই আপন করে নিতে পারবে শিশুরা। যেহেতু শিশুদের হাতে থাকবে, তাই মজবুত হওয়াটা জরুরী। সে কথা মাথায় রেখে ট্যাবটির বডি শক্ত করে বানানো হয়েছে। এর বিশাল পুরুত্বেই বোঝা যায়, মাটিতে সজোরে আছাড়ে পরলেও অক্ষুণ্ণ থাকবে বডি।

amazon fire kids edition 4

ডিসপ্লে
এতে ১২৮০*৮০০ পিক্সেল রেজ্যুলেশনের ডিসপ্লে রয়েছে। ডিভাইসটির শার্পনেস ও কালার রি-প্রোডাকশন ভালো। এই শার্পনেস ছোটদের গেইমস খেলা ও ভিডিও দেখার জন্য উপযুক্ত।

পারফরমেন্স
এতে প্রসেসর রয়েছে ১.২ গিগাহার্জ কোয়াড কোর ও এক গিগাবাইট র্যা ম রয়েছে। গেইমস খেলা ও ভিডিও দেখার মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকতে পারলে এই ট্যাবের পারফরমেন্স বেশ ভালো পাওয়া যাবে। কিন্তু ভারি কাজের ক্ষেত্রে ল্যাগ ধরা পড়বে।

ক্যামেরা
পেছনে রয়েছে ২ মেগাপিক্সেল ও সামনে রয়েছে ভিজিএ ক্যামেরা। ক্যামেরা কোয়ালিটি খুব একটা ভালো হবে না, তাই ট্যাবটি কেনার সময় ক্যামেরার দিক থেকে প্রত্যাশা কম থাকাই উত্তম।

amazon fire kids edition 3

ব্যাটারি
ট্যাবলেটটির ব্যাটারি ফুল চার্জে টেনেটুনে ৭ ঘণ্টার মত চলবে।

মূল্য
ডিভাইসটি দেশের বাজারে প্রায় ১১ হাজার টাকায় পাওয়া যাবে।

এক নজরে ভালো
– সুন্দর বডি
– ভালো ডিসপ্লে

এক নজরে খারাপ
– বাজে ক্যামেরা

আরও পড়ুন:

দুর্নাম ঘুচাতে উন্নত ফিচারে আসছে পরবর্তী গ্যালাক্সি

আহমেদ মনসুর, টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : স্মার্টফোন বাজারের শীর্ষস্থান ফিরে পেতে গ্যালাক্সি এস সিরিজের পরবর্তী ফ্ল্যাগশিপ আনার পরিকল্পনা করছে স্যামসাং। ডিভাইসটি নিয়ে নানান উড়ো-খবর শোনা যাচ্ছে। কিন্তু এ ব্যাপারে মুখে কুলূপ এঁটে রেখেছে দক্ষিণ কোরিয়ান প্রতিষ্ঠানটি।

বেশ কিছু দিন ধরে অনলাইনে স্মার্টফোনটির তথ্য ফাঁস হয়ে আসছে। এসব তথ্য যাচাই-বাছাই করে ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমস জানিয়েছে, ২১ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠেয় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে গ্যালাক্সি এস৭ ও গ্যালাক্সি এস৭ এজ উন্মোচন করা হবে। স্মার্টফোন দু’টিতে নতুন কিছু ফিচার যোগ করা হবে, যা গ্যালাক্সি এস৬ বা গ্যালাক্সি এস৬ এজে ব্যবহার করা হয়নি।

স্যামসাংয়ের বাজারে আসা ফ্ল্যাগশিপ ফোনগুলোর র্যা ম, মেমোরি, ব্যাটারিসহ অন্যান্য ফিচার নিয়ে গ্রাহকদের নানা অভিযোগ রয়েছে। এই দুর্নাম ঘুচাতে নতুন ফ্ল্যাগশিপ দুটিতে উন্নত কিছু ফিচার যোগ করছে।

Samsung's Galaxy S7 will reportedly come in two new sizes

ভেঞ্চারবিটের বরাত দিয়ে সূত্র জানিয়েছে, গ্যালাক্সি এস৭ এর দু’টি সংস্করণে মাইক্রোএসডি কার্ড দিয়ে ২০০ গিগাবাইট পর্যন্ত মেমোরি বাড়ানোর সুযোগ থাকবে। এই সুবিধা গ্যালাক্সি এস৬ ও গ্যালাক্সি এস৬ এজে ছিলো না।

সূত্রের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, স্যামসাংয়ের পরবর্তী ফ্ল্যাগশিপ স্মার্টফোন দু’টি হবে ধুলোবালি ও পানিরোধী। সম্প্রতি পানিরোধী ফিচার সমৃদ্ধ স্মার্টফোন বাজারে এনে ইতিবাচক সাড়া পেয়েছে মটোরোলা। ফলে স্যামসাং ফিচারটি তাদের স্মার্টফোনে যোগ করছে।

ভেঞ্চারবিটের মতে, স্যামসাং স্মার্টফোনের ব্যাটারি নিয়ে গ্রাহক অসন্তুষ্টি রয়েছে। এই দুর্নাম ঘুচানোর জন্য এবার গ্যালাক্সি এস৭ ও গ্যালাক্সি এস৭ এজে যথাক্রমে ৩০০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার আওয়ার ও ৩৬০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি যোগ করতে চাইছে দক্ষিণ কোরিয়ান প্রতিষ্ঠানটি। এই প্রতিষ্ঠানের গ্যালাক্সি এস৬ ও গ্যালাক্সি এস৭ এজে যথাক্রমে ২৫৫০ মিলি অ্যাম্পিয়ার আওয়ার ও ২৬০০ মিলি অ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়, যার ব্যাকআপ সেবা নিয়ে গ্রাহকদের অভিযোগের শেষ নেই।

গুঞ্জন আছে, গ্যালাক্সি এস৭ এর দু’টি সংস্করণেই ভিডিও করা ও ছবি তোলার জন্য এফ/১.৭ লেন্স অ্যাপারচারের ১২ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা ব্যবহার করা হবে। তবে কিছু গুজবে দাবি করা হচ্ছে, ফ্ল্যাগশিপ ফোন দু’টিতে ১৬ মেগাপিক্সেলের রিয়ার ক্যামেরা থাকবে।

সর্বশেষ ফাঁস হওয়া তথ্যে দাবি করা হচ্ছে, গ্যালাক্সি এস৭ ও গ্যালাক্সি এস৭ এজে স্যামসাংয়ের তৈরি প্রসেসর এক্সিনোজ ৮ অক্টা ৮৮৯০ ব্যবহার করা হবে। ডিভাইস দু’টিতে ৪ গিগাবাইট র্যা ম থাকবে। তবে গ্যালাক্সি এস৭ -এ ৩২ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজ এবং গ্যালাক্সি এস৭ এজে ৬৪ গিগাবাইট ইন্টারনাল স্টোরেজে বাজারে আসবে। এছাড়া ডিভাইস দুটিতে মাইক্রোএসডি কার্ড ব্যবহার করে আরও ১২৮ গিগাবাইট পর্যন্ত মেমোরি বাড়ানো যাবে।

আরও পড়ুন: 

১০ হাজার শব্দে টুইট করা যাবে টুইটারে

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ক্ষুদে ব্লগ লেখার সাইট টুইটারে ১৪০ শব্দে টুইট করতে হয় ব্যবহারকারীদের। এই বাধ্যবাধকতা নিয়ে অনেক ব্যবহারকারীর ক্ষোভ-অসন্তোষের শেষ নেই। তবে সুসংবাদ হল ১৪০ শব্দে টুইট করার বাধ্যবাধকতা থেকে সরে আসছে টুইটার

জনপ্রিয়তার দৌড়ে ফেইসবুকসহ অন্যান্য প্রতিদ্বন্দ্বী সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটের কাতারে উঠে আসতে এই উদ্যোগ নেয় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে টুইটারে নতুন একটি ফিচার যোগ করা হচ্ছে, যা ব্যবহারকারীদের ১৪০ এর বেশি শব্দে বার্তা টুইটের সুবিধা দেবে। প্রাথমিকভাবে শব্দসীমা ১৪০ এর পরিবর্তে ১০ হাজার নির্ধারণ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: টুইটার ব্যবহারের ৪ টিপস
twitter

সম্প্রতি টুইটারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জ্যাক ডরসির টুইট করা এক বার্তায়ও এই ইঙ্গিত পাওয়া গেছে।

কিছুদিন আগে প্রযুক্তি বিষয়ক সংবাদ সংবাদ ‘রি/কোড’ এক প্রতিবেদনে জানায়, ব্যবহারকারীদের জন্য ১৪০ শব্দের পরিবর্তে ১০ হাজার শব্দে টুইট করার সেবা চালুর পরিকল্পনা করছে টুইটার। ডরসি এই খবরের দিকে ইঙ্গিত করে একটি স্ক্রিনশট টুইট করেছেন যাতে এক হাজার ৩২৫ শব্দের টেক্সট রয়েছে।

ডরসি টুইটার বার্তায় জানিয়েছেন, বিশ্বজুড়ে সাইটটির প্রায় ৩০০ মিলিয়ন ব্যবহারকারী রয়েছেন। এই বিপুল সংখ্যক ব্যবহারকারীদের নিজেদের প্রকাশের সুযোগকে আরও সহজ করা উচিত। এতে সৃজনশীলতা ও সাহসিকতা অনুপ্রাণিত হবে।

টেক টু জানিয়েছে, নতুন এক সেবা আনতে যাচ্ছে টুইটার। এতে ব্যবহারকারীরা দীর্ঘ টেক্সট টুইট করতেন পারবেন। তবে শব্দের সংখ্যা কত হবে সে বিষয়ে প্রতিবেদনটিতে বিস্তারিত কিছু জানানো হয়নি।

ব্যবহারকারী বাড়ানো নিয়ে বিনিয়োগকারীদের চাপে আছে টুইটার। সেজন্য সাইটটি দশক পুরনো ১৪০ শব্দে টুইট করার নিয়ম উঠিয়ে দিচ্ছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

বর্তমানে টুইটারের ‘ওয়ান শট’ এবং ‘টুইট লংগার’ সেবার আওতায় দীর্ঘ বার্তা প্রকাশ করার সুযোগ রয়েছে। ওয়ান শটের মাধ্যমে ছবি এবং টুইট লংগারের মাধ্যমে নোট এবং বিভিন্ন ওয়েবসাইটের লিংক প্রকাশ করা যায়।

টেক টু, রি/কোড ও রয়টার্স অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন: 

বন্ধ হচ্ছে ইয়াহুর অনলাইন ভিডিও সেবা

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : জনপ্রিয়তা না পাওয়ায় অনলাইন ভিডিও স্ট্রিমিং সেবা ‘স্ক্রিন’ বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে অনুসন্ধান সেবাদাতা ইয়াহু

ইয়াহুর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মারিসা মেয়ার ভিডিও ব্যবসা খাতে কৌশলগত পরিবর্তনের অংশ হিসেবে স্ক্রিন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এবিসি এবং লাইভ নেশনের মতো প্রতিষ্ঠানগুলোর সহায়তায় পেশাদার ভিডিও কনটেন্ট সরবরাহ করার লক্ষ্য নিয়ে ২০১৩ সালে স্ক্রিন চালু করে ইয়াহু। সেবাটিকে জনপ্রিয় করে তুলতে সময়ে সময়ে নানা উদ্যোগও নেয় প্রতিষ্ঠানটি। কিন্তু গ্রাহক আকৃষ্ট করতে ব্যর্থ হয় তা। ফলে সেবাটি বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

online video services screen

প্রিয়াম অনলাইন বিজ্ঞাপন খাত থেকে বড় অংকের মুনাফা আয়ের আশা নিয়ে স্ক্রিন চালু করে ইয়াহু। এরপর নিজস্ব অনুষ্ঠান তৈরি এবং কর্মীদের পেছনে এ পর্যন্ত ১০ কোটি ডলার ব্যয়ও করে সংশ্লিষ্টরা। এমনকি, ‘স্যাটারডে নাইট লাইভ’ এর মতো নাম করা অনুষ্ঠান সেবাটির আওতায় আনতে চুক্তিবদ্ধ ইয়াহু কর্তৃপক্ষ। কিন্তু তবুও এই সেবা থেকে মুনাফার মুখ দেখেনি অনুসন্ধান সেবাদাতা এই প্রতিষ্ঠান।

প্রযুক্তিবিশ্বে বর্তমানে কঠিন সময় পার করছে ইয়াহু। ফলে বিভিন্ন লোকসানি ব্যবসা বন্ধের পথে হাঁটছে প্রতিষ্ঠানটি।

বিজনেস ইনসাইডার অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

আরও পড়ুন: 

ফটোগ্রাফারদের জন্য স্মার্টফোন আনছে আসুস

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : ল্যাপটপ বাজারের মতো স্মার্টফোন বাজারেও একটা শক্ত অবস্থান তৈরি করে নিয়েছে আসুস। তুলনামূলক সাশ্রয়ী স্মার্টফোনে উন্নত মানের কনফিগারেশন দিয়ে এই অবস্থান তৈরি করেছে তাইওয়ানভিত্তিক প্রতিষ্ঠানটি।

এই অবস্থানকে আরও পাকাপোক্ত করতে এবার নতুন এক স্মার্টফোন আনতে যাচ্ছে প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা এই প্রতিষ্ঠান। এই নতুন স্মার্টফোনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হল এর ক্যামেরা দিয়ে নিখুঁত ছবি পাওয়া যাবে।

বর্তমান বাজারে উন্নত মানের ক্যামেরা নির্ভর স্মার্টফোনের চাহিদা বেশি। এছাড়া দিন দিন স্মার্টফোন কেন্দ্রিক ফটোগ্রাফির জনপ্রিয়তা বাড়ছে। ফলে ফটোগ্রাফিতে ঝোঁক আছে এমন গ্রাহকদের ধরতে নতুন স্মার্টফোনটি আনতে যাচ্ছে আসুস।

Asus to launch new age photography-focused smartphone

মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে আসুস জানায়, তাদের নতুন স্মার্টফোন চলতি মাসের শেষ দিকে ভারতের বাজারে ছাড়া হবে। এতে প্রতিষ্ঠানটির তৈরি নানা ফিচারের ক্যামেরায় থ্রিএক্স অপটিক্যাল জুম সুবিধা থাকবে। এছাড়া এতে বাজার সেরা হার্ডওয়্যার থাকবে, যা নিখুঁত ছবি পেতে কাজ করবে।

নতুন স্মার্টফোনটিতে থাকবে ১৩ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি ক্যামেরা। এতে উন্নত মানের ছবির জন্য থাকবে থ্রিএক্স অপটিক্যাল জুম, ওআইএসের লেজার অটো ফোকাস ও ১০ লেন্সের মতো ফিচার জুড়ে দেয়া হবে। এছাড়া এতে পিক্সেলমাস্টারের মতো প্রযুক্তি থাকবে, যা প্রতি শটে পরিচ্ছন্ন ছবি পেতে সাহায্য করবে।

৪ জিবি র্যা মের এই ফোনে কোয়াড কোর প্রসেসর থাকবে। ওই বিবৃতিতে ডিভাইসটির মডেল, দাম বা অন্যান্য স্পেশিফিকেশনের কোনো তথ্য জানায়নি আসুস।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে আহমেদ মনসুর

ভবিষ্যতে আরও বড় পরিসরে কম্পিউটার বিজ্ঞান সপ্তাহ

টেক শহর কনটেন্ট কাউন্সিলর : বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও তথ্যপ্রযুক্তিবিদের চাহিদা বাড়ছে। সেজন্য তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ জনবল তৈরি প্রয়োজন। কম্পিউটার বিজ্ঞান সপ্তাহের মতো আয়োজন ইতিবাচক ভূমিকা রাখে। তাই এমন আয়োজনের পরিসর আরও বাড়ানো উচিত।

মঙ্গলবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ের বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) ভবনে ‘কম্পিউটার বিজ্ঞান শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৫’র সমাপনী অনুষ্ঠানে এই অভিমত ব্যক্ত করেন অতিথি ও আয়োজকরা।

বিশ্বের ১৮০টি দেশের সঙ্গে বাংলাদেশেও ৭ থেকে ১৩ ডিসেম্বর কম্পিউটার বিজ্ঞান শিক্ষা সপ্তাহ উদযাপন করে বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্ক (বিডিওএসএন) এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি)।

Computer science education week

আয়োজন উপলক্ষে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রোগ্রামিং নিয়ে কর্মশালা ও আড্ডা, ১১ ডিসেম্বর অনলাইন প্রোগ্রামিং কনটেস্ট এবং ১২ ডিসেম্বর দেশে শুধু মেয়েদের জন্য ন্যাশনাল গার্লস প্রোগ্রামিং কনটেস্ট (এনজিপিসি) অনুষ্ঠিত হয়।

সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

দেশীয় সফটওয়্যার কোম্পানি টাইগার আইটির উদাহরণ তুলে ধরে পলক বলেন, চেষ্টা করলেই বাঙালি বিশ্বকে জয় করতে পারে। সম্মিলিত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ তথ্য প্রযুক্তিতে পরাশক্তি হয়ে উঠবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত মাসিক কিশোর আলোর সম্পাদক আনিসুল হক বলেন, ছোট থেকেই শিশু-কিশোরদের কম্পিউটার প্রোগ্রামিংয়ে আগ্রহী করে তুলতে হবে।

বিডিওএসএনের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান বলেন, এই আয়োজন অব্যাহত থাকবে। তবে ন্যাশনাল গার্লস প্রোগ্রামিং কনটেস্ট আরও বড় পরিসরে করবো।

তিনি আরও বলেন, শুরুতে ভেবেছিলাম, মেয়েদের প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় ২০টি দলও হবে না। তবে শেষ পর্যন্ত সেখানে ৬৩টি দল অংশ নিয়েছিল। শুধু তাই নয়, সবাই অন্তত একটা করে সমস্যা সমাধানও করেছে।

এছাড়া এই আয়োজনে আরও বক্তব্য রাখেন বিসিসি’র নির্বাহী পরিচালক এস এম আশরাফুল ইসলাম, ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সৈয়দ আখতার হোসেন, বিডিওএসএনের সহ-সভাপতি লাফিফা জামাল।

এবারের আয়োজনের পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল ডিজিটাল সলিউশন ইনোভেটর, একাডেমিক কেয়ার বর্ণ, রকমারি ডটকম, শিওর ক্যাশ, লুমেক্স আইটি, দোহাটেক, ইজি পেওয়ে।

আর এই আয়োজনে সহযোগিতা করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, কোডমার্শাল, ইন্টারনেট সোসাইটি বাংলাদেশ, গুগল ডেভেলপার গ্রুপ বাংলা, গুগলউইমেন টেকমেকার্স ও দ্বিমিককম্পিউটিং স্কুল এবং ম্যাগাজিন পার্টনার হিসাবে ছিল কিশোর আলো।

ইমরান হোসেন মিলন